বিডিআরসিএস’র নতুন চেয়ারম্যানকে হলি ফ্যামিলির সংবর্ধনা প্রদান

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অত্যন্ত প্রিয় ও আস্থাভাজন ব্যক্তিত্ব অধ্যাপক ডা. এম.ইউ. কবীর চৌধুরী বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান পদে যোগদান করায় হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সর্বস্তরের শিক্ষক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ২রা মে, ২০২৪ মঙ্গলবার তাঁকে সংবর্ধনা প্রদান করেন।
অধ্যাপক ডা. এম.ইউ. কবীর চৌধুরী হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকায় ছিলেন এবং অদ্যাবধি কলেজ ও হাসপাতালের সঙ্গে শিক্ষা ও চিকিৎসা সেবায় যুক্ত থাকায় অত্র প্রতিষ্ঠানের সকল পর্যায়ের নিকট তাঁর গ্রহণযোগ্যতা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা অপরিসীম।
হলি ফ্যামিলি পরিবারের অত্যন্ত নিকটজনকে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির অভিভাবক হিসাবে পেয়ে সকলে ছিলেন আবেগাপ্লুত, পুরো অনুষ্ঠানটি ছিলো ভালোবাসায় সিক্ত। কলেজ ও হাসপাতালের শিক্ষা, চিকিৎসা ও প্রশাসনের সকল বিভাগ থেকে তাঁকে ফুল দিয়ে বরণ করে সংবর্ধিত করা হয়।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. দৌলতুজ্জামান, হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল  (অব.) অধ্যাপক ডা. এস.এম. হুমায়ুন কবীর ও উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মোর্শেদ এবং সঞ্চালনা করেন অধ্যাপক ডা. মু. নজরুল ইসলাম।
অধ্যাপক ডা. কবীর চৌধুরী বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সৃষ্টির ইতিহাস-ঐতিহ্য, অর্জন, কার্যকলাপ ও কর্মকান্ড সম্পর্কে তাঁর দীর্ঘ বক্তব্যে তুলে ধরেন। সংবর্ধনা প্রদানের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সর্বস্তরের শিক্ষক, চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতি দিকনির্দেশনা প্রদান করে তাদের কর্তব্য ও দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন করে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।
তিনি আশা করেন, সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টায় হাসপাতালের হৃত ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনা সম্ভব, আর সে জন্য করণীয় সকল পদক্ষেপ তিনি গ্রহণ করবেন। সেই সঙ্গে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনবল সৃষ্টি করে নতুন নতুন বিভাগ চালু করে আর্থিক স্বচ্ছলতা অর্জন করে স্বাবলম্বী হওয়ার প্রচেষ্টা করবেন তিনি।
সকল প্রকার অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা পরিহার করে সেবার মানসিকতায় কাজ করার জন্য সকলের প্রতি তিনি উদাত্ত আহŸান জানান। হাসপাতালকে আরও আধুনিকায়ন করতে তিনি জোর প্রচেষ্টা চালাবেন। একটি আধুনিক রেডিওথেরাপী ও অনকোলজী  সেন্টার করার আশা তিনি ব্যক্ত করেন। এ জন্য রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধিতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের আরও আন্তরিকতা আশা করেন, যাতে করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেয়া দায়িত্ব তিনি সুষ্ঠুভাবে পালন করতে পারেন।
Skip to content